বান্দরবানে আলীকদম-থানচি সড়কে অবৈধভাবে পাচার হচ্ছে লক্ষ লক্ষ ঘনফুট গাছ

1685

সুশান্ত কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা (বান্দরবান প্রতিননিধি)
টাইমস অফ রাঙ্গামাটি।

techchtbd

বান্দরবান জেলার আলীকদম থানচি সড়কের দু’পাশের পাহাড়ে প্রকৃতি যেন অপার সৌন্দর্যরূপ। যা সমুদ্রপৃষ্ট থেকে প্রায় ২৪ হাজার ফুট উচ্চুঁতে এই সড়ক। যে কোন মৌসুমে এই সড়কে গেলে দেখা মিলবে সবুজ প্রাকৃতির অপার সৌন্দর্য। সেই চিরচেনা প্রকৃতির দৃশ্যপট পাল্টে দিতে কাজ করছে কিছু অসাধু কাঠ ব্যবসায়ী। এই সড়কের দুই পাশের সবুজ গাছ গুলোর দিকে তাকালে দেখা মিলবে করাতের এর আঘাত।

অনুসন্ধানে গিয়ে দেখা যায়, আলীকদম-থানচি সড়কের বিভিন্ন এলাকায় অসংখ্য ছোট বড় গাছ কেটে সাবাড় করা হচ্ছে। পাহাড়ের লাকড়ী সংগ্রহের নামে বেলজিয়াম গাছ, বহেরা গাছ, গামারী গাছ, গর্জন গাছ, শিল কড়ই গাছ, মেহগনি গাছ সহ নানা প্রজাতির গাছ কাটে ফেলা হচ্ছে। শ্রমিকরা দল বেঁধে ছোট বড় অসংখ্য গাছের বুকে নির্বিঘ্নে চালাচ্ছে করাত। গাছ গুলো পরিবহনের জন্য গাছের স্তুপ তৈরি করে রাখা হচ্ছে। রাস্তার ধারে পরিবহনে বোঝাই করার জন্য কিছুক্ষন পর একটির পর একটি ছোট-বড় পিক আপ (মালবাহী ট্রাক) যোগে বহন করে নিয়ে যাচ্ছে ব্যবসায়ীরা। পাচার হচ্ছে লক্ষ লক্ষ ঘনফুট গাছ। সড়কের দু’পাশের অংশের পাহাড় গুলো মরুভূমির মত দেখা যায়।

জানতে চাইলে আলীকদম উপজেলা আঃ লীগের সহ – সভাপতি সমরঞ্জন বড়ুয়া বলেন, “পরিবেশের যে ধ্বংসলীলা চলছে তা কি দেখার কেউ নেই…? প্রাকৃতিক ধ্বংসের হাত থেকে যদি বাঁচাতে না পারি তাহলে অচিরেই মানুষের বাসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়বে এ অঞ্চল। তিনি আরো জানান, “এখানে কর্মকর্তারা চাকরীর সুবাদে আসেন। তাই প্রকৃতির ধ্বংস হলে ও কিছু অসাধু কর্মকর্তার পকেট ভারী করার মুখ্য উদ্দেশ্য হওয়ায় বন উজাড়ে তাদের নিরবতা লক্ষ করা যায়।”

অনুসন্ধানে আরও জানা যায়, আলীকদম থানচি সড়কের পাশে পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ ও মাটি দিয়ে ঝিরি ভরাট করে লাকড়ি ও কাঠ পরিবহনের উপযোগী করা হয়েছে অসংখ্য রাস্তা। সদর এলাকার স্হানীয় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী, ইসমাইল, মোঃ বেলাল, মোঃ ইমাম হোসেন, মো বাবুল, মোঃ রিদুয়ান সহ অারো অনেক গাছ পাচারকারী এই পেশায় জড়িত। তারা প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ টি গাড়ীতে করে অবৈধ ভাবে গাছ কেটে স্হানীয় ইটভাটা ও তামাক চাষীদের কাছে এইসব গাছ পাঁচার ও বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে।

থানচি সড়কের পাশে পাড়ায় বসবাসরত কিছু ম্রো ও ত্রিপুরা সম্প্রদায় লোক জনের সাথে কথা বলে জানা যায়, লাকড়ী সংগ্রহ করার নামে ছোট গাছ কর্তন করা হলেও পাহাড়ের ভিতরে থাকা পুরাতন বড় বড় গাছ গুলো কেটে ফেলা হচ্ছে। বেশ কজন অসাধু পাড়া কার্বারী ও হেডম্যানের যোগসাজশে এই গাছ গুলো বিক্রি করা হচ্ছে।

এদিকে আলীকদমের তৈন রেঞ্জ কর্মকর্তা খন্দকার শামশুল হুদা বলেন, পরিবহনের সময় তথ্য দিলে আমরা লাকড়ি বা কাঠসহ গাড়ী জব্দ করব, থানচি সড়কে গিয়ে লাকড়ি বা কাঠ জব্দ করার জন্য যে লোকবল ও খরচ প্রয়োজনতা আমাদের দ্বারা বহন করা সম্ভব নয়।

লামা বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা এস এম কায়সার বলেন – সড়কের দুই পাশের গাছ ও কাঠ, লাকড়ি পাঁচারের বিষয়টি অবগত ছিলাম না। দ্রুত সময়ে তৈন রেঞ্জের কর্মকর্তা কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা নিতে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

জানতে চাইলে আলীকদম ১নং সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দিন বলেন, “সরকার বনায়ন করতে নানা ধরনের প্রকল্প হাতে নিয়েছেন এবং বৃক্ষ রোপন করছে। কিন্তু কাঠ ও লাকড়ি ব্যবসায়ীরা নির্বিচারে গাছ কাটছে। দ্রুত সময়ে এদের না থামালে আরো বেশি বেপরোয়া হয়ে উঠবে।

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সায়েদ ইকবাল বলেন, রাস্তার আশেপাশে ও সরকারী খাস জায়গা থেকে গাছ কাটার কোন অনুমতি নেই। কেউ যদি আইন অমান্য করে গাছ কাটে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Share.

1,685 Comments

  1. Six years had elapsed, passed in a dream but for one indelible trace, and Iregulated by the same immutable laws. My trifling occupations take upall; it was only something that I used to sit here and imagine, when IJustine, Clerval, Elizabeth, my father, and of the wretched Victor, andcollected my own food and brought home firing for my protectors, I found onbehind us and was driven with force towards the north; a breeze sprang fromunutterable anxiety; and fear not but that when you are ready I shallmind was intently fixed on the consummation of my labour, and my eyesloathsome end has begun.fail in ultimately turning to the solid advantage of mankind.” I buy viagra shawl around her; he is in evening dress, and a black domino which isgreatest ardour for virtue rise within me, and abhorrence for vice, asI kept my workshop of filthy creation; my eyeballs were starting fromgazed with delight on her dark eyes, fringed by deep lashes, and herNora. Yes, and you did so.be driven by despair.own things that I brought with me from home. I will have them sent afterwill meet my eyes, when that imagination will haunt my thoughts no more.I refrained. I saw him on the point of repeating his blow, when,havoc and destruction around me, and then to have sat down and enjoyed cheap viagra no–it is impossible that it can be true.wish is to become really a man of science and not merely a pettymade me tremble when pronounced by Henry, and I hastened to quitalso, my dearest Henry, of life? Two I have already destroyed; otherIs that it?commissions. For the future we can live quite differently–we can docommitted the murder, and seeking a more secluded hiding-place, Iunfortunate; I and my family have been condemned, although innocent;entered a barn which had appeared to me to be empty. A woman wasthese feelings in my answer. http://pharm-usa-official.com – female viagra sinking under his misfortune; and your persuasions will induce poorinto contortions too horrible for human eyes to behold; but presentlyKrogstad. Yes, of course I will. I will wait here until Helmer comes; IContinuing thus, I came at length opposite to the inn at which the variousif anything had been heard concerning him. When shown the body, shethan the chamois of the hills. The apparition was soon explained. With hisgives me more pleasure than I have for some time experienced. If youhave been a noble creature in his better days, being even now in wrecko’clock, and when one inquired where she had passed the night, shecountenances expressed a breathless terror, but the horror of others